‘আদর্শ পাঠাগার’ বই বিশ্লেষণ! আজকের বই:

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত অক্টোবর ১১, ২০২০
‘আদর্শ পাঠাগার’ বই বিশ্লেষণ! আজকের বই:

‘বিজয়বাংলা ডেস্ক;
‘বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ১০৩ বিজ্ঞানীর জীবনী’
.
উনবিংশ শতাব্দীর মধ্যভাগে, যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান শহরের কোনো এক কিন্ডারগার্টেনের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ একজন মহিলাকে জরুরী তলব করে তাদের স্কুলে নিয়ে আসলো। তারপর মহিলার হাতে একটি বাধ্যতামূলক ছাড়পত্র ধরিয়ে দিয়ে বলল, আপনি আজই আপনার ছেলেকে আমাদের স্কুল থেকে নিয়ে যান। সে খুবই হাবাগোবা। আমাদের স্কুলে পড়ার জন্য যে মেধার প্রয়োজন, সেটা তার নেই! তাকে আমাদের স্কুলে রাখলে আমাদের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা তার হাবাগোবা স্বভাবে প্রভাবিত হয়ে পড়বে!
পরেরদিন যখন সেই বালকটি তার মায়ের কাছে সেই স্কুলে না যাওয়ার কারণ জানতে চাইল, মা তখন বললেন, তুমি খুবই মেধাবী বাবা! তোমাকে পড়ানোর জন্য যথেষ্ট যোগ্য শিক্ষক তাদের স্কুলে নেই। তাই, তারা আমাকে বলেছে তোমাকে অন্য একটি ভালো স্কুলে ভর্তি করিয়ে দিতে। তুমি দুঃখ পেও না, আমি তোমাকে শিগগিরই ভালো একটি স্কুলে ভর্তি করিয়ে দেব।
আসলে ঐ নিতান্ত হাবাগোবা ছেলেটির মা সেদিন তাঁর ছেলের সাথে খানিকটা মিথ্যা কথা বলেছিলেন।
কিন্তু কে জানতো, সেইদিনের সেই হাবাগোবা ছেলেটি একদিন এমন কিছু আবিষ্কার করবে যা দেখে গোটা দুনিয়ার লোক বিস্ময়ে বিমুঢ় হয়ে যাবে!
একদিন যাকে অন্ধকারের বাসিন্দা বলে সামান্য এক স্কুলে পড়তে দেওয়া হলো না, আজ সারা পৃথিবী তাঁর আবিষ্কাকারের বদৌলতে আলোর মুখ দেখছে!
প্রিয় পাঠক, আমি বলছি বৈদ্যুতিক বাল্ব সহ অসংখ্য আবিষ্কারের জনক বিশ্ববরেণ্য বিজ্ঞানী ‘টমাস আলভা এডিসন’ এর কথা !
বিশ্বের এরকম খ্যাতিমান শতাধিক আবিষ্কারকের জীবন ও কর্ম সম্পর্কীয় অনেক বিষ্ময়কর ঘটনার মুখরোচক বর্ণনার সমাহার এ বইটি।
‘আদর্শ পাঠাগারের’ জ্ঞানপিপাসু কোমলপ্রাণ পাঠকদের জন্য বইটির একাধিক সংখ্যা সংগৃহীত আছে।
তাই, আসুন বই পড়ি, আদর্শ ও সাফল্যমণ্ডিত সার্থক জীবন গড়ি।