ধর্ষণের কঠোর শাস্তি প্রকাশ্যে প্রয়োগের দাবিতে সিলেটে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের বিশাল সমাবেশ

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত অক্টোবর ১৬, ২০২০
ধর্ষণের কঠোর শাস্তি প্রকাশ্যে প্রয়োগের দাবিতে সিলেটে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের বিশাল সমাবেশ

সাঈদ বিন আকবর : বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর মাওলানা রেজাউল করিম জালালী বলেন, দেশব্যাপী অব্যাহত খুন ধর্ষণ নারী নির্যাতন মহামারীর আকার ধারণ করেছে। তা এখনই বন্ধ করতে হবে, না হয় সমাজের চরম অধঃপতন ঘটবে। মাদকের সয়লাব বন্ধ করতে ব্যর্থ হলে যুব সমাজ ধ্বংস হবে।
ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের আইন প্রণয়ন করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, তা যথাযথভাবে প্রকাশ্যে জনসম্মুখে বাস্তবায়ন করতে হবে। তিনি বলেন, পুলিশী নির্যাতনে সিলেটের আখালিয়ার যুবক রায়হানের হত্যাকান্ডে সিলেটবাসী শোকাহত ও বিক্ষোব্ধ । অবিলম্বে রায়হানের খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি এবং তার এতিম শিশু ও পরিবারের দায়দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে। অন্যথায় সিলেটবাসী যে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে।
নারীর অশ্লীল উপস্থাপন ও বাণিজ্যিক ব্যবহার রোধ, মাদক সরবরাহ ও প্রাপ্তির যাবতীয় পথ বন্ধ এবং ধর্ষণের কঠোর শাস্তি প্রকাশ্যে প্রয়োগের দাবিতে আজ বিকালে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগর শাখার উদ্যোগে সিলেট কোর্ট পয়েন্টে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক বলেন, দেশব্যাপী জুলুম, নির্যাতন, খুন, গুম, ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের হুলি খেলায় দেশ মৃত্যুপুরিতে পরিণত হয়েছে। হযরত শাহজালাল, শাহপরানসহ ওলী আউলিয়া ও পীর মাশায়েখদের পূণ্যভূমি সিলেটের ঐতিহ্যবাহী একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী নামের নরপশুরা একজন গৃহবধুকে স্বামীর কাছ থেকে কেড়ে নিয়ে নৃসংসভাবে গণধর্ষণের মাধ্যমে এই পবিত্র মাটিকে কলংকিত করেছে। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে কিছু হায়েনাকর্তৃক একজন মধ্যবয়সী গৃহবধুকে তার ঘরে প্রবেশ করে যে পাশবিক নির্যাতন করেছে তা আইয়্যামে জাহিলিয়াতকেও হার মানিয়েছে।
তিনি বলেন, এভাবে একের পর এক ঘটনা প্রবাহে সারাদেশে যখন ধর্ষণের মহোৎসব চলছে, তখন প্রশাসনের হেফাজতে পুলিশী নির্যাতনে সিলেটের টগবগে যুবক রায়হানের হত্যাকান্ড প্রমাণ করে দেশের মানুষের জান মালের কোনো নিরাপত্তা নাই। তিনি হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, আমার মা বোনের ইজ্জত এবং দেশের নাগরিকদের নিরাপত্তা ব্যবস্থার বিধান করা না হলে দেশের মানুষ বিক্ষোব্ধ হয়ে রাস্তায় নেমে আসতে বাধ্য হবে।
ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড প্রকাশ্যে জনসম্মুখে কার্যকর করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করার আহবান জানিয়ে উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, গাছের গোড়া কেটে আগায় পানি ঢাললে যেমন কোনো লাভ হবে না, ঠিক তেমনি ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদন্ড কার্যকরের পাশাপাশি এর উৎস নারীর অশ্লীল ও খোলামেলা ব্যবসায়িক উপস্থাপনা বন্ধ করতে হবে। ধর্ষকের পাশাপাশি এর উৎস তৈরীকারীদেরকেও শাস্তির আওতায় এনে নারী জাতির সন্মান রক্ষা করতে হবে।
নগর সভাপতি মাওলানা গাজী রহমতুল্লাহ এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা এমরান আলম এর পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন যুগ্মমহাসচিব মাওলানা আব্দুল আজীজ, জেলা সভাপতি মাওলানা ইকবাল হোসাইন, সহ সভাপতি মাওলানা জাহিদ উদ্দীন চৌধুরী, মহানগর সহসভাপতি মাওলানা আব্দুল কাইয়ুম, জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আতিকুর রহমান, মহানগর সহসাধারণ সম্পাদক আব্দুল গাফফার, মাওলানা আব্দুল আহাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা সানাউল্লাহ্, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মুতাসিম বিল্লাহ্ জালালী, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মুফতি মাহবুবুল হক, মহানগর প্রশিক্ষণ সম্পাদক হাফেজ মাওলানা রেজাউল হক, মহানগর প্রচার সম্পাদক হাফেজ মাওলানা এখলাসুর রহমান, জেলা প্রচার সম্পাদক মুফতি নাসির উদ্দীন প্রমূখ ।