এম এ রহিম শহিদের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে ভোট আদায়ের অভিযোগ মিছবাহুর রহমানের

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত অক্টোবর ১৭, ২০২০
এম এ রহিম শহিদের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে ভোট আদায়ের অভিযোগ মিছবাহুর রহমানের

সালাহ্ উদ্দিন ইবনে শিহাব :: আসন্ন মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চশমা প্রতীকের প্রার্থী মিছবাহুর রহমান তার প্রতিদ্বন্দ্বী মোটর সাইকেল প্রতীকের প্রার্থী এম এ রহিম শহিদের বিরুদ্ধে অনৈতিক উপায়ে ও টাকার বিনিময়ে ভোট আদায়ের চেষ্টা, নিজ গাড়িতে সরকারি স্টিকার ব্যবহারসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনেছেন। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে আসা বক্তব্যের লিখিত প্রতিবাদ করেছেন। তবে টাকার বিনিময়ে ভোট আদায়ের চেষ্টাকে ভিত্তিহীন বলেছেন এম এ রহিম শহিদ।
আজ ১৭ অক্টোবর মিছবাহুর রহমান স্বাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগপত্র গণমাধ্যমে পাঠান। এই অভিযোগপত্রে তিনি বলেন, ‘মোটর সাইকেল মার্কার প্রার্থী এম এ রহিম শহিদ নিজ গাড়িতে সরকারি স্টিকার ব্যবহার করছেন এবং ভোটারদের বিভিন্নভাবে অনৈতিক উপায়ে প্রভাবিত করে যাচ্ছেন।’
অভিযোগপত্রে আরো উল্লেখ্য করা হয়, ‘এ ব্যাপারে ইতোমধ্যে জেলা রিটার্নি অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। ভোটাররা বিভিন্নভাবে অভিযোগ করছেন যে, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী টাকার বিনিময়ে ভোট আদায়ের চেষ্টায় লিপ্ত আছেন।’
মিছবাহুর রহমান আরো উল্লেখ করেন ‘আমার ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার উদ্দেশ্যে সাম্প্রতিক দুই একটি গণমাধ্যমে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অসত্য ও মনগড়া তথ্য দিয়ে নির্বাচন ও নির্বাচনী কার্যক্রম প্রশ্নবিদ্ধ করার হীন মন মানসিকতায় লিপ্ত রয়েছেন। সেই সাথে ভোটারদের বিভ্রান্ত করছেন যা মোটেই কাম্য নয়। আমি এসব ভিত্তিহীন বক্তব্য ও অপপ্রচারের নিন্দা জানাই।’
এ ব্যাপারে জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনের মোটর সাইকেল প্রতীকের প্রার্থী ও যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এম এ রহিম শহিদ পূর্বদিককে বলেন, আমি একজন সিআইপি হিসাবে গাড়িতে স্টিকার ব্যবহার করতেই পারি। তবে টাকা দিয়ে ভোট আদায়ের অভিযোগটি ভিত্তিহীন। তিনি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর (মিছবাহুর রহমানের) লোকজন সরকারি গাড়ি ব্যবহার করে তার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণার অভিযোগ আনেন।
এম এ রহিম শহিদ আরো বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মিছবাহুর রহমানের লোকজন আমার ভোটার ও কর্মী-সমর্থকদের প্রতিনিয়ত হুমকি-ধমকি প্রদান করছে। ভোট প্রকাশ্যে টেবিল কাস্ট না করলে সেন্টারে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলেও নানাভাবে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। তিনি এসব বিষয়ে জেলা নির্বাচন অফিসে এ পর্যন্ত ৭টি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানান।
উল্লেখ্য, আগামী ২০ অক্টোবর মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চশমা প্রতীকের প্রার্থী মিছবাহুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোটর সাইকেল প্রতীকের এম এর রহিম (সিআইপি) প্রতিদ্বন্দ্বীতায় রয়েছেন। উভয় প্রার্থীই নির্বাচনী আচরণ-বিধি লঙ্গনসহ বিভিন্ন অভিযোগ করেছেন।
মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনের চশমার প্রার্থী আলহাজ মো. মিছবাহুর রহমান বলেন, এম এ রহিম শহিদ যে ভোটারদের মধ্যে টাকা বিতরণ করছেন তার প্রমাণ আমার কাছে আছে। আমি নির্বাচন কমিশনের কাছে এর আগেও একটি অভিযোগ দিয়েছি আগামীকালও প্রমাণসহ আরো একটি অভিযোগ দাখিল করবো।
এ বিষয়ে মৌলভীবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন বলেন, দুই প্রার্থীই পক্ষে-বিপক্ষে অভিযোগ করেছেন। আমরা তার জবাব দিয়েছি। ভোটারদের মধ্যে টাকা বিতরণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কোন অভিযোগ পেলে আমরা নির্বাচনী আচরণ-বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবো।
তিনি আরো বলেন, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে ভোট হচ্ছে প্রার্থী ও ভোটারদের নাগরিক অধিকার। মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে ভোট প্রদান ও গ্রহণ নির্বিঘ্ন হবে। স্বচ্ছভাবে যাতে ভোটাররা ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন নির্বাচন কমিশন সেই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।