কেমন হবে কওমি মাদ্রাসার সিলেবাস? একটি সংক্ষিপ্ত পর্যালোচনা

বিজয় বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত নভেম্বর ১৯, ২০২০
কেমন হবে কওমি মাদ্রাসার সিলেবাস? একটি সংক্ষিপ্ত পর্যালোচনা

মাহবুবুর রহমান তাজঃ কওমি প্রতিষ্ঠানগুলো চলছে কওমি বোর্ডসমুহ অনুসরণ করে। যদি বোর্ডগুলো সার্বিক দিক বিবেচনা করে যুগচাহিদার অনুকূলে পাঠ্যপুস্তক বা কারিকুলাম তাদের অধীনস্থ প্রতিষ্ঠানের জন্য সম্পাদনা করতে না পারেন তখন নিজ নিজ উদ্যোগে এভাবেও তালিমী বা শিক্ষা কার্যক্রম চালু করা যেতে পারেঃ

১. প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ইউনিফর্ম ও প্রথম শ্রেণী হতে সর্বোচ্চ ডিগ্রি ক্লাস পর্যন্ত সুন্নাতে নববীর উপর আমলে আবশ্যিক করা।
২. আরবি টু বাংলা- সারফ, নাহু, লুগাত, মানতিক, বালাগাত ও আকাঈদ আদ্যোপান্ত পাঠদান করা। এগুলোতে পরিপূর্ণ দক্ষতা অর্জনের জন্য বিষয় ভিত্তিক অভিজ্ঞ উস্তাদ নিয়োগ দেয়া।
৩. প্রথম শ্রেণী থেকে আরবি শব্দ জ্ঞান অর্জনে বাধ্যতামুলক করা।
৪. প্রত্যেক শ্রেণীর সাথে মিল রেখে জাতীয় কারিকুলাম হতে ইংলিশ, অংক, সমাজ, বিজ্ঞান, সায়েন্স ও টেকনোলজি অন্তর্ভুক্ত করে পাঠদান করা।
৫. ৬ষ্ঠ শ্রেণী হতে কম্পিউটারের বেইসিক নলেজ শিক্ষা দেয়া।
৬. একাদশ শ্রেণীতে সফটওয়্যারের প্রাথমিক কোর্স চালু করা।
৭. একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে আধুনিক ও ইসলামিক বিজনেস ডিপ্লোমা শুরু করা।
৮.  দশম শ্রেণীতে আরবির উপর দক্ষতা অর্জনে আধুনিক আরবি সাহিত্য সংযোগ করা।
৯. একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে ভোকেশনাল বা কারিগরি ডিপ্লোমা চালু করা।
১০. প্রথম শ্রেণী হতে ইংলিশ শব্দজ্ঞান বাধ্যতা মুলক করা।
১১. নবম ও দশম শ্রেণীতে ইংলিশ স্পিকিং, লিসেনিং ও রাইটিং এ দক্ষতা অর্জনে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়া।
১২. একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী দ্বারা আরবি ও ইংলিশ কম্পিটিশনের ব্যবস্থা রাখা।
১৩. দশম শ্রেণীর মধ্যেই বাংলাভাষায় পারদর্শী করে গড়ে তুলা।
১৪. দ্বাদশ ও ত্রয়োদশ শ্রেণীতে সেমিস্টার সিস্টেম ভোকেশনাল ও বিষয়ভিত্তিক ডিপ্লোমা চালু করা।
১৫. চতুর্দশ ও পঞ্চদশ শ্রেণীতে দুই বছর মেয়াদি চার সেমিস্টার ভিত্তিক তাফসীর, উসুলে তাফসীর, হাদীস, উসুলে হাদীস, ফিকহ, উসুলে ফিকহ সম্পন্ন করা।
১৬. সর্বোচ্চ ডিগ্রি ক্লাস ষষ্ঠদশ শ্রেণীতে তাকমীল ফিল হাদীস সম্পন্ন করা।

এটি একটি আধুনিক সিলেবাসের সংক্ষিপ্ত খসড়া। এভাবেই বর্তমান ও আগামী প্রজন্মকে দ্বীনি তা’লিমের পাশাপাশি জাগতিক ভাবে শিক্ষিত করে ইসলাম ও দেশের জন্য তৈরি করা আপনার আমার নৈতিক দায়িত্ব।
আল্লাহ তাআলা সকলকে সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়ার তৌফিক দান করুন, আমীন।