হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে মামলার এজহারে যা বলা হয়েছে

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ৬, এপ্রিল, ২০২১, মঙ্গলবার
হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে মামলার এজহারে যা বলা হয়েছে

হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে ওই ব্যক্তির দায়ের করা মামলার এজাহারের বিবরণীতে তিনি বলেন, ‘বিবাদী হেফাজতে ইসলামের নেতা মাওলানা মামুনুল হকের (মুহাম্মাদ মামুনুল হক) সরাসরি প্রত্যক্ষ হুকুমে আসামি (২) মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব তার হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে অতর্কিত আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার মাথা লক্ষ্য করিয়া বাড়ি মারিলে প্রাণ রক্ষার্থে আমি সরিয়া গেলে তৎক্ষণাৎ সে আমার ডান পায়ে হাটুর নিচে বড় রড দিয়ে বাড়ি মারিয়া গুরুতর হাড় ভাঙ্গা জখম করে। উক্ত আঘাতে আমি মাটিতে পড়িয়া গেলে আসামি (৩) মাওলানা লোকমান হাকিম, (৪) মাওলানা নাসির উদ্দিন মনির তাদের হাতে বাশের লাঠি দ্বারা আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করিয়া গুরুতর জখম করে।

এ পর্যায়ে আসামি (৫) মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া তার হাতে থাকা ক্রিজ দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে সাক্ষী শহিদুল ইসলামের মাথার পেছনে গুরুতর কাটা জখম করে। এ পর্যায়ে আসামি (৬) মাওলানা নুরুল ইসলাম জেহাদী তার হাতে থাকা বাশের লাঠি দ্বারা সাক্ষী রুবেল মাতুব্বর (রাজ)-এর বাম হাতে বাহুতে গুরুতর হাড় ভাঙ্গা জখম করে। আসামী (৭) মাজিদুর রহমান প্রাণে মারিয়া ফেলার উদ্দেশ্যে সাক্ষী প্রফেসর ড. আরশেদ আলী আশিককে মাথা লক্ষ্য করিয়া কাঠের চেলা দিয়ে বাড়ি মারিলে সে তার ডান হাত দিয়া ফিরাইলে ডান হাতের কব্জির উপর গুরুতর হাড় ভাঙ্গা জখম হয়……

……এমতাবস্থায় আমরা প্রাণে বাঁচতে মসজিদের উত্তর গেইট থেকে দৌড়ে বের হওয়ার সময় আসামি (৮) মাওলানা হাবিবুর রহমান (লালবাগ ঢাকা), আসামি (৯) মাওলানা খালিদ সাইফুল্লাহ্ আইয়ুবীসহ অজ্ঞাতনামা আসামিগণ বেশ কয়েকটি ককটেল নিক্ষেপ করে। পরবর্তীতে উপরোক্ত আসামিগণসহ অজ্ঞাত আসামিগণ সরকার বিরোধী শ্লোগান দিয়ে ২৩, বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়স্থ আওয়ামী লীগ অফিসের দিকে মিছিলসহ অগ্রসর হওয়ার এক পর্যায়ে আসামি (১০) মাওলানা জসিম উদ্দিন আসামি (১১) মাওলানা মাসুদুল করিম, রিবলবার দ্বারা জনতার উদ্দেশ্যে ৫/৬ রাউন্ড গুলি ছুরে……

আসামি (১২) মুফতি মুনির হোসেন কাসেমী, ১৩) মাওলানা যাকারিয়া নোমান ফয়েজী, (১৪) মাওলানা ফয়সাল আহমেদ, (১৫) মাওলানা মুশতাকুন্নবী, (১৬) মাওলানা হাফেজ যুবায়ের (ছাত্র ও যুব সম্পাদক), (১৭) মাওলানা হাফেজ মুহাম্মাদ তৈয়বসহ (দপ্তর সম্পাদক) অন্নান্য আসামিগণ বায়তুল মোকাররমের আশে পাশের দোকানে হামলা চালিয়ে লুটপাট ও অগ্নি সংযোগ করে। উপরোক্ত আসামিগণসহ অজ্ঞাতনামা আসামিগণ বায়তুল মোকাররমসহ মহানগরের বিভিন্ন স্থানে তাণ্ডব চালিয়ে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে।- ইনসাফ

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন