দাওয়াতের পরিবেশ কায়েম করতে গণতন্ত্র লাগে না

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ১৯, এপ্রিল, ২০২১, সোমবার
<strong>দাওয়াতের পরিবেশ কায়েম করতে গণতন্ত্র লাগে না</strong>

কলমেঃ মির সালমান।

আকবর ছিলো এক নৃশংস মুরতাদ তাগুত। সে ইসলামি শরিয়াহ শাসন অপসারণ করে, কাফেরদের সাথে জোট করে এবং ভারতবর্ষ থেকে ইসলাম ধ্বংসে সর্বাত্মক প্রয়াস চালায়। আক্ষরিক অর্থেই তার রিদ্দার মাত্রা কামাল পাশার চেয়ে মোটেই কম ছিলোনা।

তথাপি মুজাদ্দিদে আলফে সানি রহ তার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেননি। বিক্ষোভ বা হরতালের চেষ্টা করেননি। গোপন ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে সরকার পতনের চেষ্টা করেননি। আবার নিজেকে সালাফি মাদখালিদের মতো apolitical pacifist দর্শকে পরিনত করেননি। হকের দাওয়াত দেওয়া ছেড়ে দেননি। সন্যাসী সুফিবাদীদের মতো রাষ্ট্র ও সমাজের সংস্কার থেকে উদাসীন ছিলেননা।

মুজাদ্দিদে আলফে সানি রহ তাসাউফ এবং সুলুকের পথে দাওয়াত ও তাজদিদের যে প্রদীপ জ্বালান তার আলো সমগ্র ভারতবর্ষ এবং দুনিয়াকে আলোকিত করে তাঁর মৃত্যুরও অনেক দিন পরে। আকবর মারা যায়। সে ইমান এনেছিলো কিনা তা নিয়ে ঐতিহাসিকগন নিশ্চিত না। কিন্তু জাহাঙ্গীর ইমান এনেছিলো। তারপর শাহজাহান মুসলমান ছিলো। শেষ পর্যন্ত ভারত আবার ইসলামের অধীনে আসে মুহিউদ্দিন আলমগীর রহ এর সময়ে। মুহিউদ্দিন আলমগীর রহ ছিলেন মুজাদ্দিদে আলফে সানি রহ এর পুত্র খাজা মাসুম রহ এর মুরিদ।

দাওয়াত ও তাজদিদের কাজ এভাবেই করতে হয়। দাওয়াতের পরিবেশ কায়েম করতে গণতন্ত্র লাগেনা। গনতন্ত্রের ঘুর পথে হাঁটতে গিয়ে লাখো কোটি ইসলামের কর্মী গণতন্ত্রের কর্মীতে পরিনত হয়।

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন