ঈদের ছুটির পর শহর অভিমুখে উপচে পড়া ভিড়, সংক্রমন বাড়ার আশঙ্কা

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ১৫, মে, ২০২১, শনিবার
<strong>ঈদের ছুটির পর শহর অভিমুখে উপচে পড়া ভিড়, সংক্রমন বাড়ার আশঙ্কা</strong>

ঈদের ছুটি শেষে আগামীকাল রোববার থেকে খুলে যাচ্ছে অফিস কল কারখানা। এ কারণে কাজে যোগ দিতে ঈদের দ্বিতীয় দিনেই ঢাকা অভিমুখে যাত্রা করছেন সাধারণ মানুষ।

মানুষের এমন গাদাগাদি অবস্থায় যাতায়াতের ফলে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তবে যাত্রীরা বলছেন, দূরপাল্লার অন্যান্য পরিবহন বন্ধ থাকায় তারা বাধ্য হয়েই ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন।

দক্ষিণের জেলা থেকে আসা এক যাত্রী গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন যে, অন্যান্য ঈদে তারা আরও দীর্ঘ সময় ধরে ছুটি কাটান। কিন্তু এবার লকডাউনের মেয়াদ আরও বাড়তে পারে, এমন আভাস পেয়ে এক প্রকার তাড়াহুড়া করেই কর্মস্থলে ফিরছেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ১৬ই মে পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানো হয়েছিল।

লকডাউনের এই সময়সীমা আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়ে ২৩শে মে পর্যন্ত বাড়বে বলে বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

রোববার এ সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসার কথা রয়েছে।

লকাডাউন চলাকালীন এই পরিস্থিতিতে দুরপাল্লার পরিবহনের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল।

ফেরি চলাচলের অনুমোদন দেয়া হয়েছিল, শুধুমাত্র জরুরি পণ্য পরিবহনের কাজে।

কিন্তু ঈদের ছুটি কাটাতে সাধারণ মানুষকে সেই ফেরিতেই ভিড় করে যাতায়াত করতে দেখা গেছে।

ঘাটগুলোয় লঞ্চ, স্পিডবোটসহ অন্যান্য যাতায়াত সেবা বন্ধ থাকায় দক্ষিণের জেলায় যাতায়াত করতে যাত্রীরা বাধ্য হয়ে ফেরি ব্যবহার করেছেন।

এসময় অনেক যাত্রী নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া দাবি করারও অভিযোগ করেন। সূত্রঃ বিবিসি

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন