জামায়াত প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আর্ত-মানবতা ও বিপন্ন মানুষের কল্যাণে সাধ্যমত কাজ করে যাচ্ছে- মুহাম্মদ শেলিম উদ্দীন

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ৭, জুন, ২০২১, সোমবার
<strong>জামায়াত প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আর্ত-মানবতা ও বিপন্ন মানুষের কল্যাণে সাধ্যমত কাজ করে যাচ্ছে- মুহাম্মদ শেলিম উদ্দীন</strong>

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ রাজধানীর মহাখালীর সাততলা বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে কয়েক শ’ ঘর পুরোপুরি ভষ্মীভূত হয়েছে। ফলে ঘটনাস্থলে দেখা দিয়েছে মানবিক বিপর্যয়। এমতাবস্থায় ক্ষতিগ্রস্থ ও আশ্রয়হীন মানুষদের প্রতি সমবেদনা জানাতে আজ দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের আমীর মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন। তিনি পুরো বস্তি এলাকা ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং ক্ষতিগ্রস্থদের সাথে একান্তে কথা বলেন। তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান এবং জামায়াতের পক্ষ থেকে যথাসাধ্য সহযোগিতার আশ্বাসও দেয়া হয়। মহানগরী আমীর অগ্নিদুর্গতদের বিপদে ধৈর্য্যধারণের পরামর্শ দেন এবং সম্ভাব্য ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার জন্য মহান আল্লাহ তায়ালার রহমত কামনা করেন।

উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে সেলিম উদ্দিন বলেন, জামায়াত একটি গণমুখী, আদর্শবাদী ও কল্যাণকামী রাজনৈতিক সংগঠন। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আমরা আর্ত-মানবতা ও বিপন্ন মানুষের কল্যাণে সাধ্যমত কাজ করে যাচ্ছি। দেশ-জাতির ক্রান্তিকালে এবং সাধারণ মানুষের যেকোন সমস্যায় জামায়াত সবসময়ই ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেছে। মানবতার কল্যাণে আমাদের এই ইতিবাচক তৎপরতা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।

মহানগরী আমীর বলেন, জামায়াত কোন গতানুগতিক রাজনৈতিক দল নয়। জামায়াত সাধারণ মানুষের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি, বেকারত্ব দুরীকরণ, শিশু ও মাতৃস্বাস্থ্য, শিক্ষা উন্নয়ন, জনগণের মধ্যে মূল্যবোধের সৃষ্টি ও চর্চায় উদ্বুদ্ধকরণসহ মানুষের জাগতিক ও আধ্যাত্বিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। একই সাথে আমরা সমৃদ্ধ জাতি গঠন ও ন্যায়-ইনসাফের সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য দীর্ঘ সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি দেশকে কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস চালানোর আহবান জানান।

তিনি বলেন, যেকোন দুর্ঘটনা আল্লাহর পক্ষ থেকে পরীক্ষা। তাই সকল বিপদ-আপদ ধৈর্য্যের সাথে মোকাবেলা করা প্রত্যেকের ঈমানী দায়িত্ব। আর বিপদগ্রস্থ মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আশা আপনার-আমার সকলেরই কর্তব্য। তিনি বিপদগ্রস্থ মানুষের কল্যাণে কাজ করতে সমাজের বিত্তবান মানুষসহ সংশ্লিষ্ট থানার সকল স্তরের জনশক্তির প্রতি আহবান জানান।

মহানগরী আমীর বলেন, রাজধানীতে অগ্নিদুর্ঘটনা এখন নৈত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই বস্তিতে ২০১২, ২০১৫, ২০১৬ ও ২০২০ সালের ২৪ নভেম্বর ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি ঘটনার কারণ উদঘাটনে মোটেই সহায়ক হয়নি। তাই এবার গঠিত তদন্ত কমিটি যাতে অতীতের বৃত্তে আটকে না যায় সেদিকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে সরকারকে। তিনি রাজধানীতে অগ্নিদুর্ঘটনা রোধে সরকারকে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার সহ কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান জানান।

এ সময় মহানগরী আমীরের সাথে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারি সেক্রেটারি ডা. ফখরুদ্দীন মানিক, ঢাকা মহানগরী উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য ইয়াছিন আরাফাত, বনানী থানা আমীর মিজানুর রহমান খান, থানা সেক্রেটারি আব্দুর রাফী ও জামায়াত নেতা আনোয়ার এলাহী প্রমূখ।

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন