শহিদ হওয়া ইমামের প্রতিবাদ করা কি আড়াই লাখ ইমামদের দায়িত্ব নয়?

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ২২, জুন, ২০২১, মঙ্গলবার
<strong>শহিদ হওয়া ইমামের প্রতিবাদ করা কি আড়াই লাখ ইমামদের দায়িত্ব  নয়?</strong>

মুহাম্মদ নিযামুদ্দীন মিসবাহ : বাংলাদেশে আাড়াই লাখ মসজিদ রয়েছে। এই আড়াই লাখ মসজিদের আড়াই লাখ ইমামের দায়িত্ব নয় কি ইমামতি করতে গিয়ে শহীদ হওয়া এই নও মুসলিম ইমামের হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ করা?

বাংলাদেশে সুইপারদের ইউনিটি আছে, ইউনিটি আছে ভাসমান যৌনকর্মীদের। সকল শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার আদায়ে তার মুহুর্তে একাট্টা হয়ে যায়। কিন্তু কী অদ্ভূত ব্যাপার। কতোটা আফসুসের কথা ভাবতে পারেন! আমাদের ইমামদের সেই অর্থে কোন ইফেক্টিভ ইউনিটি নেই।

ওমর ফারুক হত্যা কাণ্ডের প্রতিবাদে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের খতীবের মুখ থেকে একটা শব্দ শুনেছেন কেউ? এই জাতীয় প্রতিষ্ঠানটি কার পারপাস সার্ভ করছে? সরকারের দালালী করা ছাড়া এই উম্মতকে, ইমামদেরকে, খতীবদেরকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য কোন উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররাম?
আমাদের জাতীয় খতীব কে? কেউ জানেন কিছু? ইমাম ও খতীব সম্প্রদায়ের অধিকার, দায়িত্ব ও কর্তব্য এবং অসংশ্লিষ্টদের অধিকার ক্ষুন্ন হলে একটা কথা বলতে শুনেছেন এইসব খতীব ইমামদের মুখ থেকে?

আমরা ধ্বংস হওয়ার আগে কি জাগবোনা? শহীদ ওমর ফারুক হত্যা কাণ্ড মাত্র শুরু। এটা একটা ম্যাসেজ আমাদের জন্য। আজ ঐ শহীদ পরিবার, এবং ওখানকার নও মুসলিম প্রায় ৩০টি পরিবার জীবনের হুমকিতে রয়েছে।

আগামী শুক্রবারের খুতবার একমাত্র বিষয় হওয়া উচিৎ শহীদ ওমর ফারুক হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবী। দেশের আড়াই লাখ খতীব, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ দশ কোটি মানুষের কাছে একযোগে এই দাবীটি উত্তাপন করলে বাংলাদেশে এমন কোন শক্তি নেই যারা এটা এড়িয়ে যেতে পারে। অবহেলা করতে পারে।

সারা দেশের সকল ইমামদের কাছে এই আর্তনাদটুকু পৌঁছে দেয়ার জন্য কেউ আছেন?
শেয়ার করে সবার কাছে তা পৌঁছে দিন।

লেখক:সম্পাদক,বিজয় বাংলা নিউজ পোর্টাল,
bjoybangla.com

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
  • 19
    Shares