মেঘবতী

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ২, জুলাই, ২০২১, শুক্রবার
<strong>মেঘবতী</strong>

কলমেঃ আব্দুল হাকিম সুজন।

মেঘের দেশে বসবাস তোমার
মাঝে মধ্যে আসো,
মাঝে মধ্যে এসেই তুমি
দেহকে দেও ভিজিয়ে।

নরম শরীর নরম দেহ
শীতল করে যাইও,
মনের মধ্যে আগুন দিয়ে
আবার কোথায় তুমি যাও।

উঁকি ঝুঁকি কেনো মারও
কেনোই বা যাও চলে,
গম্ভীর মনে আগুন দিয়ে
মনটাকে দেও বিগড়ে।

আছি একা নেই ভাবনা
ভুলে যাই সঙ্গ,
নিভানো আগুন ফুঁ দিয়ে।
জ্বালিয়ে যাও চলে

যে দেশে যেখানে আছে
জোড়া-জোড়ি যাও তুমি,
হাতে রেখে হাত খানি
শ্বাস নিবে তোমারই।

মেঘবতী শান্তিবতী আমার
জন্যে নও তুমি,
তোমায় চেয়ে ঝরে পানি
আমার দুটো চোখের মণি।

কতটা মেঘ ডাকে ও আকাশে
আমার বুকের হাহাকার শুনিলে,
তুমি যাবে পালিয়ে।

মেঘবতী তুমি ঠান্ডা
আমার বুকের ভিতর
আছে জমা বরফ টা।

গোলে গোলে পড়ে পানি
ভিতরটা হয়েছে ছিদ্ররা।

সবার জন্যে সব নয় ভালো
কিচ্ছু মানুষের জন্যে বিষ।

নিদ্রায় ঘুমিয়ে থাকে
হইলে রাত্রের নিশী,
আমার জন্য হয়রে কাল
যদি আসে রাত্রি
জেগে জেগে বালিশ ভেজে
কান্দে নিশী দিন।

বৃষ্টি হলে ঝরে পানি
আসমান ও জমিনে,
তাই দেখে বুকের বরফ
গোলে গোলে পড়ে চোখের
মণিতে।

ছাদে যাই না আর আমি
যাই না নদীর পাড়ে,
বৃষ্টি হলে ঝরে পানি
আমার বুকের ভিতরে।

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
  • 87
    Shares