আব্দুল আজীজ রহ.-এর মাদ্রাসা থেকে আজীজুল হক রহ.-এর মাদ্রাসার ইতিহাস প্রায় এক ও অভিন্ন

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ১৬, জুলাই, ২০২১, শুক্রবার
<strong>আব্দুল আজীজ রহ.-এর মাদ্রাসা থেকে আজীজুল হক রহ.-এর মাদ্রাসার ইতিহাস প্রায় এক ও অভিন্ন</strong>

সাইমুম সাদীঃ শাহ আবদুল আজীজের রহ, মাদ্রাসা রহিমিয়া থেকে আল্লামা আজীজুল হকের রহ, জামেয়া রাহমানিয়ার ধারাবাহিকতা খেয়াল করুন ইতিহাস প্রায় এক ও অভিন্ন।

জামেয়া রাহমানিয়া থেকে জামেয়া হাকিকিয়্যাহ এবং নদীর ওপারে ওয়াশপুরের চতুর্দিকে থই থই পানির মাঝখানে শায়খুল হাদীসের মাদ্রাসা -এসব তো আমাদের চোখের সামনেই ঘটেছে। নৌকায় করে নদী পাড়ি দিয়ে গিয়ে ওয়াশপুরে হাদীসের খেদমত করতে যেতেন শায়খুল হাদীস।

শায়খুল হাদীস প্রায় নিষিদ্ধ ছিলেন দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকায়। কারণ বাবরি মসজিদ লংমার্চ পরবর্তী সময়ে মাওলানা মান্নান সাহেবের দিক নির্দেশনা শায়খুল হাদীস আল্লামা আজীজুল হক মানতে পারেননি। সেই সময় মান্নান সাহেবের মাধ্যমে তৎকালীন সরকার ইসলামী দলগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করত।

সেই সময় ইনকিলাবও লিখেছিলো শায়খুল হাদীসকে তার প্রতিষ্ঠিত রাহমানিয়া মাদ্রাসায় ঢুকতে দেওয়া হয়নি। গেটে গাড়ি আটকিয়ে তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

শাহ আবদুল আজীজের রহ, মাদ্রাসা রহিমিয়া ইংরেজরা গুড়িয়ে দিলে তার ছাত্ররা গিয়ে দেখে হুজুর বেশ হাসিখুশিতেই আছেন। ওরা বললো, আপনার মাদ্রাসা ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে আর আপনি নিশ্চিন্ত আছেন হজরত!

শাহ আবদুল আজীজ নির্বিকার চিত্তে বললেন, মাদ্রাসা নয় ওরা দালান ভেঙেছে। মাদ্রাসা এইখানে, আমার বুকের ভেতরে।

শায়খুল হাদীস রহ, এর সন্তান মাওলানা মাহফুজুল হক তার মাদ্রাসা হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে এজন্য একটুও বিচলিত না হয়ে যখন বলেন, যারা মাদ্রাসা নিচ্ছেন তারাও তো মুমীন, তখন তার দৃঢ়তা ও চিন্তাধারা আমরা বুঝতে পারি। মাওলানা মাহফুজুল হক যদি যেদিকে চোখ যায় সেদিকে একটু এগিয়ে যান, আমি জানি মাদ্রাসা আরও কয়েকটি তৈরি হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।

মাস দেড়েক আগে আজিমপুরে আমি রিকসায় যাচ্ছিলাম। একটি পরিচিত কন্ঠস্বর শুনে ডানপাশে তাকিয়ে দেখলাম মাওলানা মাহফুজ ভাই দাড়িয়ে আছেন হাসিহাসি মুখে। মাহফুজ ভাই আজও আগেই সালাম দিয়ে দিলেন। বেফাকের মহাসচিব অথচ একটুও অহমিকা নেই।

রিকশা থামাতে চাইলাম, হাত নেড়ে বললেন চলে যান।

আমি যেতে যেতে দেখলাম, কতবড় ঝড় বয়ে গেছে যে ফ্যামিলির উপর দিয়ে, এবং সেই ঝড়ের মুখে দাড়িয়ে যে ব্যাক্তি একাই সব সয়ে যাচ্ছেন তার চেহারা ক্লান্তিহীন ও হাস্যময়।

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
  • 2
    Shares