মৌলভীবাজারে দ্বিতীয় দফায় আরও ২১ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ১৭, জুলাই, ২০২১, শনিবার
<strong>মৌলভীবাজারে দ্বিতীয় দফায় আরও ২১ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ</strong>

বিজয় বাংলা ডেস্ক | মৌলভীবাজারে দ্বিতীয় দফায় আরও ২১ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে জেলা সদরের ঢাকা বাসস্ট্যান্ড থেকে তাদের আটক করা হয়। আটকদের মধ্যে চারটি মেয়ে শিশু, তিনটি ছেলে শিশু, আটজন নারী ও ছয়জন পুরুষ রয়েছেন।

মৌলভীবাজার মডেল থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আটক রোহিঙ্গারা মিয়ানমার থেকে ভারতের ত্রিপুরা হয়ে মৌলভীবাজার সীমান্তের পৃথিমপাশা ইউনিয়নের আলীনগর দিয়ে কুলাউড়ায় প্রবেশ করেন। এরপর তারা সিএনজি অটোরিকশায় করে মৌলভীবাজার জেলা সদরের ঢাকা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আসেন। কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাওয়ার জন্য ওই স্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন তারা।

এ সময় সদর মডেল থানা পুলিশের একটি টিম সেখানে দায়িত্ব পালন করছিল। পুলিশের চোখে তাদের আচরণ সন্দেহজনক মনে হয়। তখন তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা জানান, মিয়ানমার থেকে এসেছেন। এরপর শিশু, নারী-পুরুষসহ ২১ জনকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

তারা হলেন, মো. শাকের (২৭), লায়লা বেগম (২৭), নূর হালিমা (৭), নূর কলিমা (৬), নূর সামিরা (৪), মো. ছোফায়েদ (২), নাজমূল্লাহ (২২), সানোয়ারা (২০), নাসিমা (৩), ইউছুফ আলী (২৮), মোস্তাকিমা (২১), ইসলামা খাতুন (৪৯), মিনার নাহার (১৭), মোহাম্মদ ইউনুছ (৫), রোকেয়া বেগম (১৫), জুবায়ের (২১), মনোয়ারা (২১), মো. ওমায়ের (নয় মাস), মোহাম্মদ ইয়াহিয়া (২৫), মো. কামাল (২০) ও সেনুয়ারা আক্তার (১৮)।

পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক রোহিঙ্গারা জানান, তাদের আত্মীয়-স্বজনরা বাংলাদেশের বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থান করছেন। তাদের কাছে যাওয়ার জন্যই তারা মিয়ানমার থেকে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে মৌলভীবাজারে আসেন।

তারা আরও জানান, মিয়ানমারে আর্থিক দৈন্যতায় পড়ে জীবন-জীবিকার তাগিদে বাংলাদেশের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থাকার জন্য চলে এসেছেন।

এর আগে গত ২ জুলাই আরও ১৪ জন রোহিঙ্গাকে মৌলভীবাজার থেকে আটক করা হয়। তারা কাজের সন্ধানে কক্সবাজারের ক্যাম্প থেকে বেরিয়ে এসেছিলেন। পরে তাদের আবার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাঠায় পুলিশ।

মৌলভীবাজার সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জিয়াউর রহমান সমকালকে বলেন, আটক ২১ জনকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
  • 32
    Shares