এবার তালেবানের সমর্থনে রাজপথে নারীরা!

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ১২, সেপ্টেম্বর, ২০২১, রবিবার
<strong>এবার তালেবানের সমর্থনে রাজপথে নারীরা!</strong>

অনলাইন ডেস্ক | তালেবানের ক্ষমতা গ্রহণকে স্বাগত জানিয়ে ও নতুন সরকারের পক্ষে কাবুলের রাস্তায় মিছিল করেছে আফগান নারীরা। শনিবার বিকেলে শতশত হিজাবধারী নারী রাজধানী কাবুলের রাস্তায় বিক্ষোভ মিছিল করে। এসময় তারা দখলদারদের বিরুদ্ধে এবং তালেবানের পক্ষে স্লোগান দিতে থাকে।

কাবুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিছিলটি বের হবার আগে নারীরা তালেবানের পক্ষে কথা বলেন। তারা তালেবানের শাসনেই ভাল আছে বলে জানানো হয়। বিজনেস ইনসাইডারের প্রতিবেদনে বলা হয়, নারীরা বলছিল, ‘আমরা তালেবানের শাসন ও সুন্দর আচরণে সন্তুষ্ট’।

বিক্ষোভে অংশ নেয়া তালেবানের পতাকা গায়ে জড়ানো এক নারীর বক্তব্য বার্তা সংস্থা এএফপি প্রকাশ করে। এএফপির ঐ প্রতিবেদনে সেই নারী বলেন, আমরা তাদের বিরুদ্ধে যারা নারীদের প্রতিনিধিত্ব করার কথা বলে রাস্তায় নেমেছিল। এটাই কি তাদের সর্বশেষ সরকারের নারী স্বাধীনতা? আসলে এটা স্বাধীনতা নয়। আশরাফ গণি সরকার নারীদেরকে অপব্যবহার করেছে।নারী অধিকারের পক্ষের আশরাফ গণিরা শুধুমাত্র নারীদের সৌন্দর্য দেখে চাকুরি দিত।

সম্প্রতি সংসদে মন্ত্রীত্বের দাবিতে কাবুলের রাস্তায় বিক্ষোভ করে কয়েকজন নারী। তালেবানের পক্ষ থেকে বলা হয় নারীরা জাতীয় সংসদের সদস্য হতে পারবেন। তারা বাহিরে কাজের জন্যও যেতে পারবেন। তবে নারী অধিকার কর্মীরা সংসদে নারীদের মন্ত্রীত্ব দিতে হবে দাবি করে। সেই দাবির পক্ষে কয়েকদিন ধরে মিছিল করে কিছু তথাকথিত নারী অধিকার কর্মী। সে সংবাদ পশ্চিমা গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করা হয়। বলা হয় নারীদের অধিকার ক্ষুন্ন করছে তালেবান।

ঠিক এমন একটি সময়ে কাবুলের রাস্তায় নেমেছে শত শত নারী। তারা ইসলামী শরিয়াহ্ মোতাবেক পরিচালিত হতে চায়। তালেবানের ইসলামী শাসন ব্যবস্থা সমর্থন করে স্লোগান দিতে থাকে তারা। মিছিল বের করার আগ-পরে ঐ সব তথাকথিত ‘নারী অধিকার’ কর্মীদের বিরুদ্ধে নানা প্রতিবাদী কথা বলেন আফগান নারীরা। তারা বলেন, সেব নারীরা আফগানিস্তান ছেড়ে চলে গেছে তারা আমাদের দেশের নারীদের প্রতিনিধিত্ব করতে পারে না।

বিক্ষোভ মিছিলের নিরাপত্তা দেন তালেবান সদস্যরা। ছবিতে দেখা যায় ভারী অস্ত্র হাতে তালেবান সদস্যরা আফগান নারীদের বিক্ষোভ মিছিলে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছেন।

সুত্র : ইনকিলাব

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
  • 55
    Shares