এহসান গ্রুপ নিয়ে মুখ খুললেন হাবিবুর রহমান মিসবাহ

বিজয়বাংলা ডেস্ক
প্রকাশিত ১৫, সেপ্টেম্বর, ২০২১, বুধবার
এহসান গ্রুপ নিয়ে মুখ খুললেন হাবিবুর রহমান মিসবাহ

 

 

এহসান গ্রুপ সম্পর্কে সাক্ষাতকার চেয়ে কয়েকজন সাংবাদিক ফোন করেছেন। কাউকে সময় দেওয়া সম্ভব হয়নি। শুধু ফেস দ্যা পিপলকে একটি সাক্ষাতকার দিয়েছি।

 

আর্থিক লেনদেন সম্পন্ন প্রতিষ্ঠানে উত্থান-পতনটা স্বাভাবিক। কোনো কোম্পানির ভালো কাজের প্রশংসা করা যায় কিন্তু বিনিয়োগের জিম্মাদারী নেওয়া বোকামী। নিজেকে গ্যারান্টেড বানিয়ে আরেক কোম্পানিতে বিনিয়োগ করতে বলা সমর্থন করি না। কেউ দায় নিলে এবং পরবর্তীতে গ্রাহকরা প্রতারণার শিকার হলে আইনের কাঠগড়ায় জিম্মাদার ব্যক্তি দোষী হলে বিচার হবে।

 

হালাল ও দীনি কাজে আল্লাহর রহমত থাকে, তবে গোটা জগতের রহমত বলাটা আবেগ বা গুরুত্ব বুঝানো হয়েছে হয়ত। তবে এতটা বাড়িয়ে বলা ঠিক মনে করি না। পৃথিবীর জন্য রহমত সায়্যিদুনা মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম।

 

হাফিজুর রহমান সাহেব বক্তব্য দিয়েছেন বেশ আগে, যদিও ওভাবে বক্তব্য দেওয়া তার মতো ব্যক্তির জন্য একদমই বেমানান, তবুও তার বিরোধিতা যারা করছেন, তারা গ্রাহকদের দরদী হয়ে নয় বরং হাফিজুর রহমান সাহেবের প্রতি পূর্ব ক্ষোভ থেকে বিরোধিতা করছেন বলেই মনে হচ্ছে। তারপরও কথা থেকেই যায়— তার মতো ব্যক্তির পক্ষ থেকে এহসান গ্রুপ নিয়ে শক্ত বক্তব্যে হাজার হাজার মানুষ বিনিয়োগ করেছে এবং প্রতারিতও হয়েছে এটা সত্য। অতএব, এ ব্যাপারে আইনীভাবে তার দায় থাকলে সেটা আইনই দেখবে।

 

এহসান গ্রুপ সম্পর্কে ঝালকাঠীর রাজাপুর কলেজমাঠে এক বয়ানে গিয়ে শুনেছি এবং চলমান আলোচিত ঘটনার পর আবার জেনেছি। এর আগেপরে এই গ্রুপ নিয়ে ভালোমন্দ কখনও কিছু শুনিনি।

 

এহসান গ্রুপের মাহফিলে দেশের পরিচিত অধিকাংশ আলোচকই অংশগ্রহণ করেছেন। এই অংশগ্রহণে দোষের কিছু দেখি না। আলোচকবৃন্দ দাওয়াত পেলে যাবেন এটাই স্বাভাবিক।

 

সবশেষে দাবী জানাবো— এহসানের সমস্ত সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে গ্রাহকদের পাওনা মিটিয়ে দেওয়া হোক। সঙ্কট দেখা দিলে সরকার সে দায়ভার গ্রহণ করবে যেহেতু নিবন্ধিত গ্রুপ। নিবন্ধন ছাড়া এতবড় গ্রুপ তো চলতে পারে না। বছরে বছরে অডিটও হওয়ার কথা, তাহলে এতবড় সর্বনাশ হলো কীভাবে?

বিজয়বাংলা/এইচএম/১৫/৯/২০২১

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন